জীবনে প্রারম্ভিকার দিকে আমরা ছোট ছোট ছড়া লিখি

লিখেছেন - প্রজাপতি মন | লেখাটি 588 বার দেখা হয়েছে

জীবনে প্রারম্ভিকার দিকে আমরা ছোট ছোট ছড়া লিখি।হয়তো দু'টো লাইন,হয়তো বা চারটা লাইন।এভাবে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কয়েকটা ছড়া লেখার পর হঠাৎ আবিষ্কার করি ছড়াগুলো বড় নিষ্প্রাণ,কয়েকটা ছড়া তো ছিন্ন বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে,আবার কয়েকটা ছড়াকে খুঁজেই পাচ্ছি না, যেন তারা হারিয়ে গেছে এ জীবন থেকে!

এরপর আসে কবিতা লেখার পালা,কখনো এক পাতা কখনো বা দু'খানি পাতা পূরণ করে চলে এর দৃপ্ত পদচারন।কিছু কবিতাকে আমরা সাজিয়ে গুছিয়ে পরম যত্নে রেখে দেই কোন এক গহীন ভূবনে,কিছু কবিতায় জায়গা হয় ঘরের পাশেই আবর্জনার ঝুড়িতে,আবার কিছু কবিতা থেকে যায় খাতার পাতায় বড় অনাদরে।এরপর যখন মাঝবয়সে এসে পৌঁছায়,হঠাৎ করেই মনে হয়, 'এ জীবন শুধু ছড়া কবিতা লেখার নয়!

দেখি তো একটা উপন্যাস লিখতে পারি কি না!উপন্যাস না পারলে ক্ষতি কি?না হয় একটা গল্প নিদেনপক্ষে একটা ছোটগল্প তো লেখাই যায়?'তারপর কেউ ছোটে গল্প লিখতে কেউবা উপন্যাস।কেউবা দুখের গল্প লিখে বুক ভাসায়, সাথে সাথে তার কাছের মানুষগুলোকেও কাঁদায়;আবার কেউবা গল্পশেষে সীমাহীন সুখের আতিশায্যে ভুলে যায় একসময়ের প্রিয়মুখগুলো কে!

কেউ কেউ আবার সুখ দুঃখে সবসময়ের সঙ্গী কিছু মানুষের মুখের হাসির জন্য সর্বোচ্চ পরিমান ত্যাগ স্বীকার করতেও দ্বিধাবোধ করে না!সবারজীবনেই যে এরকমটা হবে , সেরকম কোন কথা নেই | কিন্তু তারপরেও কিছু কথা থেকেই যায় ! হাজার হলেও আমরা বৃত্তের মাঝে বন্দী, এর পরিধিকে অতিক্রম করতে খুব কম মানুষই পারে..

Share