জনৈক স্ত্রীকে তার পক্ষ থেকে পাঠানো ডিভোর্স লেটার

লিখেছেন - ফারজানা তাবাসসুম শীলা | লেখাটি 1024 বার দেখা হয়েছে

জনৈক স্ত্রীকে তার পক্ষ থেকে পাঠানো ডিভোর্স লেটার
পাওয়ার পর হাজবেন্ডের লেখা চিঠি।

"তুমি না চাইলেও সময়গুলো চলে যাবে... চোখের দৃষ্টি ঝাপসা হবে, চুলে পাক ধরবে, রাতের ঘুম কমে আসবে, প্রিয়জনদের দেয়া কষ্টের লিস্টি লম্বা হবে।
অনেক বুঝতে শিখবে তখন। অন্যের একটা আচরণের সাথে সাথেই প্রতিক্রিয়া দেখাতে ভাল লাগবে না আর। মানুষকে ক্ষমা করে দিতে ভাল লাগবে ।

তখন, অতগুলো দিন পরে তোমার হয়তো মনে হবে, মানুষটা তো খুব বড় কোন অন্যায় করেনি। তাকে ক্ষমা করে দিলেই পারতাম। হয়তো খুব আফসোস হবে তোমার।
হয়তো লুকিয়ে কাঁদবে তুমি।

তাই খুব আশেপাশেই থাকব আমি। ডাক পেলেই ছুটে আসব। ডিভোর্স তো চাইলেই দেয়া যায়। সব কিছুর পরও একসাথে থাকতে পারাটা ম্যাজিকাল। আমি ম্যাজিকের অপেক্ষায় থাকব। ওই লাইনগুলো মনে আছে তোমার?

/যদি আজ বিকেলের ডাকে তার কোনো চিঠি পাই,
যদি সে নিজেই এসে থাকে!
যদি তার এতকাল পরে মনে হয়,
দেরি হোক যায়নি সময়।/

ভাল থেক, ভালবাসা।"

Share