তুই ফেলে এসেছিস কারে, মন রে আমার...

লিখেছেন - একুয়া রেজিয়া | লেখাটি 916 বার দেখা হয়েছে

তুই ফেলে এসেছিস কারে, মন রে আমার...
=======================

আজ সকালে ঘুম ঘুম চোখে মুখ বইতে বসে আবিস্কার করলাম কোন এক বিচিত্র কারণে আমরা তিনজনই অনলাইনে। তিনজন অর্থাৎ মৌসি, চৈতী ও আমি। প্রথম জনের সাথে বন্ধুত্বের ২০ বছর চলছে, দ্বিতীয়জনের সাথে চলছে বন্ধুত্বের ১৭ বছর। ছেলেবেলা, কিশোরীবেলা পেরিয়ে এসে এখন আমরা তিনজনই ভীষণ ব্যস্ত। দেখা হয় না বেশ ক'বছর হয়ে গিয়েছে। কারো সাথে কারো ফ্রি টাইম মেলে না। অথচ একসময় বেইলিরোড, ধানমন্ডি, সিদ্ধেশ্বরী চষে বেড়াতাম তিন জনে। ঘন্টা হিসেবে রিকশা ভাড়া করে ঘুরতাম, একদিনে এত ছবি তুলতাম যে আস্ত ফ্লিম শেষ হয়ে যেত, শখ করে সেজেগুজে শাড়ী পরতাম, রঙ মিলিয়ে মিলিয়ে পোষাক পরতাম, একসাথে আইসক্রিম খাওয়া, টাকা জমিয়ে ব্ল্যাক ফরেস্ট কেক কিনে সেটার পর ঝাঁপিয়ে পড়া, বাড়ির ছাদে লম্বা হয়ে শুয়ে থেকে হা করে আকাশ দেখা, হাওয়াই মিঠাই খাওয়া, ফুচকা দেখলে জুলুজুলু চোখে তাকিয়ে থাকা, প্রতিদিন নিয়ম করে ল্যান্ডফোনে ঘন্টাখানেক আড্ডা দেওয়া, যার ফলাফল স্বরূপ বাসায় সেই লেভেলের ধাতানি খাওয়া, একে অন্যকে লম্বা লম্বা চিঠি লেখা, বন্ধু দিবসে কার্ড আর ফ্রেন্ডশিপ ব্যান্ড বানানোসহ কত কিছুই না করেছি। আজ মনে পরলে সেই সময়গুলো ভেবে লোভাতুর চোখে ফেলে আসা পথের দিকে তাকিয়ে থাকি।

সময়গুলো কী এত সুন্দর থাকতো যদি তোরা না থাকতি? এই আমি কী এমনভাবে গড়ে উঠতে পারতাম, যদি তোরা এতগুলো বছর পাশে না থাকতি? আমি জানি আমরা বদলে গেছি বেশ, কিন্তু আজও যখন নিজের স্মৃতিঘরে ফিরে যাই কিংবা ভাবনার আকাশে ধূলো উড়াই তখন কেমন জ্বলজ্বল করে উঠে আমাদের বন্ধুত্বের দিনগুলো।

ভাগ্যিস মুখবই ছিলো। আজ তাই অনেকদিন পর তিনজনের ধুমসে আড্ডাবাজি হল। কথাবার্তা কোন স্টেশন নাই, তিনজনেই লাইফ নিয়ে ব্যাড়াছ্যাড়া অবস্থায় আছি, ব্যস্ততা তলিয়ে যাচ্ছে দিনগুলো, তারপরেও কোথাও যেন আমরা আগের মতই আছি। আবার একসাথে তিনজন কথা বলতে গিয়ে বুঝতে পারলাম, কেন স্কুল জীবনকে সবাই গোল্ডেন লাইফ বলে।

জীবনকে বলতে চাই, অনেক অনেক বছর পর যখন আমার কপালের পাশে রুপোলী চুলের ছোঁয়া এসে যাবে, যখন চৈতীর চশমার কাঁচটা আরও পুরু হয়ে যাবে, যখন মৌসি চোখের কোণে সূক্ষ্ণ কিছু রেখা এঁকে যাবে সময়, তখনও আমি ওদেরকে আমার পাশে চাই। তখনও একসাথে গল্প করে ফেলে আসা সময়গুলোকে জীবন্ত করতে চাই। আমি আমার এই ভীষণ পুরনো, সেন্টু খাওয়া দুই বান্ধবীকে অসম্ভব রকমের ভালোবাসি।

Share