একটি মেডিক্যালীয় লাভ স্টোরি

লিখেছেন - বিকেল চড়ুই | লেখাটি 7933 বার দেখা হয়েছে

মেয়েটি ছেলেটির দিকে এক পলক তাকিয়েছিল। আইটেমে সেদিন ছেলেটি পেন্ডিং খেয়েছিল। ক্যাডাভারের মাসলে মাসলে ভিসেরার দেয়ালে দেয়ালে আর মাইক্রোস্কোপের নিচে তখন থেকে শুধু মেয়েটি আর মেয়েটি।

ছেলেটি উদাস মনে সাপ্লি খায়। প্রফ আসে চলে যায়। পরীক্ষার
হলে ছেলেটি এবং মেয়েটি খুব কাছাকাছি। এনাটমি পরীক্ষার সময় মেয়েটি রাবারটা ধার নেয়, পরে সেই রাবারটার ঠাঁই হয় ছেলেটার বুক পকেটে। অসপির দৌড়াদৌড়িতে মৃদু ধাক্কা আর ছেলেটার চোখের সামনে হার্ট লাংস সব ভিসেরা এলোমেলো হয়ে যায় ।

দিন কাটে। সাপ্লির সংখ্যা বাড়ে। বাড়তেই থাকে।

তারপর ..

বিয়েতে মেয়েটি ফিরোজা রংয়ের শাড়ি পরেছিল। বন্ধুরা সবাই গ্রুপ ফটো তুলছে। খাওয়াদাওয়া পর্ব চলছে। বর ঐ মেডিকেলের সার্জারি ডিপার্টমেন্টের লেকচারার। মেয়েটির দশ বছরের সিনিয়র। মেয়েটি দূর থেকে একদৃষ্টিতে ছেলেটির
খাওয়া দেখছে।

ছেলেটা গোগ্রাসে বিরানি গিলছে। সহপাঠীনির বিয়ে খাওয়ার মজাটাই অন্যরকম! বিরানির স্বাদ চোখে পানি এনে দেয় !

আহা বুক পকেটে রাবারটা বড়ো যন্ত্রণা করছে !

Share