স্মৃতিচারণ

লিখেছেন - মারিয়া অহনা | লেখাটি 857 বার দেখা হয়েছে

কাল রাতে হঠাত্‍ এফ.এম এ তোর লেখা গানটা শুনলাম।চমকে গিয়েছিলাম একদম।চলে গিয়েছিলাম স্মৃতির flash back এ।হাতড়ে ছিলাম কিছু পুরনো স্মৃতি।কততো দিন আগে তুই আমাকে গানটা শুনিয়েছিলি।আজ তোর স্মৃতিগুলোই আমার সাথে আছে।নেই শুধু তুই।

তোর কি মনে পড়ে সেই সব দিনের কথা।আমি কিন্তু এখনও ঐ সব কথা ভাবি আর নিজের মনেই হাসি।

তুই ছিলি আসলেই আস্ত একটা পাগল।সারাদিন গান লেখার মাঝেই ডুবে থাকতি।শুধু পরীক্ষা আসলেই তার আগের রাতে পড়তি।কতো তোকে বলতাম, "ভালো করে পড়; এইসব গান নিয়ে জীবন গড়বে না;ভবিষ্যতের কথা ভাব্।" কিন্তু কে শোনে কার কথা।

তোর জন্য রাতে শান্তিমতো ঘুমাতেও পারতাম না।নতুন নতুন একটা করে গান লিখতি আর যতই রাত হোক না কেন ফোন করে বলতি, "দোস্ত, একদম ফ্রেশ লিখলাম।শোন্ না একটু।" আমি ঘুম ঘুম চোখে শুধুই হুম্ হুম্ করতাম।শুধুই কি তোর লেখা গানটা শুনাইতি।তারপর যখন তোর বন্ধুরা সুর করতো,সেইটাও শুনতে হতো আমাকে।তুই কতো জোর করতি আমাকে গান গাওয়ানোর।বলতি,"তোর গলা ভালো, কেন গাইছিস না।"আমি শুধুই হাসতাম।মনে মনে চাইতাম না যে তা না।কিন্তু ভয় পেতাম, পাছে আমার কাকের মতো কর্কশ কন্ঠের গান শুনে তুই যদি পালিয়ে যাস।

 

 

তুই সারাদিন শুধু তোর গানের কথা শুনাইতি আমাকে।আর আমি  ! ! ! "সারাদিন ক্যাম্পাসে কি করলাম।কয়টা ক্লাশ ফাঁকি দিলাম,কোথায় আজ বেড়াতে যাবো,শপিং এ কি কি কিনলাম।" এ সবই বক বক করতাম তোর কাছে।তুই বলতি "অই, সারাদিন আর কাম নাই নাকি।শুধু ঘুরে বেড়ানো।যা পড়তে বস্।" উলটা ঝাড়ি দিতি আমাকে।অথচ নিজে পড়ার ধারে কাছে নাই।

 

 

এখনও খুব মনে পড়ে তোর কথা।কতই না  আনন্দের ছিল দিনগুলো।কিন্তু এখন আমি খুব খুশি তোর গাওয়া গান আর তোর লেখা কবিতা শোনার কেউ একজন আছে এখন।ভালো লাগে ভাবতে তুই এখন তাকে নিয়েই তোর গান লিখিস।ভাগ্যিস্ আমাকে নিয়ে কখনও লিখিস নি  ! ! ! ! !

Share