তৃপ্ত সুপ্ত

আমি... আমি খুব সাধারণ একজন! কথায়, আচরণে, পোষাকে, দর্শনে, এলো হাতে বাঁধা চুলে আমি খুব সাধারণ... তোমার আশেপাশে থাকা আর দশজনের মতই সামান্য আমি... দূরপাল্লার বাসে, রোজকার ভীড় সামলানো যানবাহনে তোমার পাশেই যদি বসে থাকি, চোখ ফেরাবে না দ্বিতীয়বার... এতটাই তুচ্ছ আমি...

কিন্তু তাতে আমি ব্যাথিত নই একদম। বরং গর্বিত আমার সাধারণত্বে। আমি বাবা মায়ের অসাধারণ সন্তান, বন্ধুদের প্রাণের বন্ধু, প্রিয়জনের দৃষ্টিতে সেরা ব্যাক্তিত্ব... তাদের চোখে আমি নিজেকে দেখি... হলাম নাহয় সাধারণ আমি তোমার চোখে, কি এসে যায় তাতে?? আমি কেবল আমার মতো। এরচেয়ে বড় কোন সত্য আদৌ কি আছে? আমি কখনো উচ্ছল, কখনো শান্ত। কখনো দুরন্ত, কখনো নিশ্চল। আমি কখনো ভীষণ একরোখা, কখনো কষ্টে ভেঙে পড়া দুখী একজন। আমার পরিচয় আমি একজন মানুষ... তৃপ্ত একজন মানুষ। ভারিক্কি চাল কিংবা গম্ভীরতার সাথে যার আজন্ম শত্রুতা। অপূর্ণতাহীন মানুষ আমি, আমার চারপাশে অনেক ভালোবাসা।

লেখালেখি আমার নেশার মত। মন খারাপের দুপুর কিংবা হারিয়ে যাওয়ার দিন রাত্তিরে ইচ্ছে খাতায় আঁকাবুকি করে লিখে ফেলি প্রাণের কথা। শুদ্ধ সাহিত্য হয় কিনা জানিনা, তবে আমার লেখার মুগ্ধ পাঠক আমি নিজেই। এইতো আমি, তৃপ্ত সুপ্ত।