চুপকথা

লিখেছেন - নূহা চৌধূরী | লেখাটি 1344 বার দেখা হয়েছে

আররেএএএ এরে ঘাটাইস না । মাইয়া খুব ই ভাব এ থাকে ! এই মাইয়ার বিয়ার দুই দিনের মাথায় ডিভোর্স হইবো ! দেখোস না মুখ টা কেমনে রাখে ! 

আচ্ছা ওর কি ব্রেক আপ হইসে ? আরে না জন্মের সময় ওর আম্মায় মুখে তিতা করলার রস দিসিলো ! মাইয়ার পার্ট ই আলাদা ! উহু আসলে ও কথা কইতে পারে না ! 

 

প্রতিদিন ক্লাসে এরকম আরো কত কমেন্ট যে কানে আসতো আমার ! খুব খারাপ লাগতো আমার ! আমি কারো সাথে মিশতে পারতাম না ! বলা ভালো মিশতে পারি না । আমার একা থাকতেই ভাল লাগে সত্যি কিন্তু ক্লাসে সবার হুল্লোড় যখন দেখি আমারো ইচ্ছা করে মাঝে মাঝে ওদের পাশে একটু খানি বসতে , ওদের মত প্রাণ খুলে হাসতে ! আমি পারি না । পারি না বলেই আমার একা থাকতে ভাল লাগে ! 

ছোটবেলা থেকেই কড়া শাসনের বেড়ির মাঝে বড় হয়েছি , বয়সে বড়দের দেখলে কুকড়ে থাকার ট্রেনিং পেয়েছি ! ট্রেনিং বৃথা যায়নি , এখনো বড়দের সামনে কথা বলতে গেলে বুক ধড়ফড় করে এই বুঝি ভুল কিছু বলে ফেললাম ! 

কিন্তু এই মুখচোরা আমাকেও ভালবাসার দেবী বর দিলেন ! বর না বলে অভিশাপ বলাই ভালো । নিজের মাঝে একটা সূক্ষ্ম অহং কাজ করতো আমি আর দশটা মেয়ের চাইতে আলাদা ! আমি নিথিয়া একটাই ! কিন্তু এই অসাধারন একটাই আমি আর দশজন সাধারনের মত প্রেমে পড়ে গেলাম , বলা ভালো ভালবেসে ফেললাম , শুধু চোখের দেখায় ! 

 

তারপরের কি অসহ্য সময় গুলো ছিলো ! নাম জানি না , ধাম জানি না , ধর্ম জানি না শুধু জানি একজোড়া অপূর্ব দ্যুতিময় চোখের মালিককে আমি খুঁজছি ! অবাককর হলেও সত্যি যেখানে তাকে দেখেছিলাম প্রতি সপ্তাহে ঐ সময়ে ওখানে দাঁড়িয়ে থাকতাম একবার যদি দেখতে পাই ! 

 

অবশেষে তার দেখা পেলাম । না পেলেই হয়তো ভাল হতো , কেমন করে যেন পরিচয়টাও হয়ে গেলো , তারপর খোঁজখবর নেয়া । সবকিছু স্বপ্নের মতো হত ! 

 

তারপর ... 

আমার ভাল লাগা , হয়তো ভালবাসারো , মানুষটা আমার কাছে জীবনে প্রথম কিছু চাইলো । আর তা হলো আমি ! হয়তো আমার ঐ মুহুর্তে সবচেয়ে সুখী মানুষ হিসেবে নিজেকে পাওয়ার আনন্দে ভেসে যাওয়ার কথা ! কিন্তু মনের আরেক কোণ থেকে খবর এলো তুই পৃথিবীতে একা থাকতে এসেছিস নিথিয়া ! তোর ভুলে গেলে চলবে ? 

 

আমি তাকে ফিরিয়ে দিলাম ! আমার নির্লিপ্ততায় বজ্রাহত হয়ে অনি শুধু বলেছিলো 

"আমাকে সবাই বলেছিল তুমি পাথর , আমি জেনেছিলাম তুমি ফুল কিন্তু আজ জানলাম তুমি এই পৃথিবীর একমাত্র জীবন্ত পাথর" 

 

তার আরো পরে-

কোন এক সকালে অনির বিয়ের নিমন্ত্রন পত্র পাই ... সাথে আরো কিছু কাগজ ও আসে , মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে ! এ বছর থেকে ছ মাস অন্তর চেক আপ ! আমার হৃদয়ের পরিধি কতটুকু বাড়লো চিকিত্‍সকেরা দেখবেন !দিনে দিনে বড় হতে থাকা হৃদয় একসময় ব্লাড পাম্প করবে না । চুপচাপ আমি আরো চুপ হয়ে যাবো । চুপকথা নিথিয়া তার নামকে সার্থক করে চুপ হয়ে যাবে ! 

 

আমার একা পৃথিবীতে আমি একা পড়ে থাকলাম ! আগের থেকে আরো বেশি চুপচাপ ! কোন কোন মানুষের চোখে অহংকারি আর কারো কারো চোখে পাথর হয়ে !

 

 

 

Share