ক্রাশ খাওয়ার গল্প

লিখেছেন - নূহা চৌধূরী | লেখাটি 3378 বার দেখা হয়েছে

অবশেষে আমাদের নিতি আবারো ক্রাশ খেলো । ভাবছেন এতো অবাক হওয়ার কি আছে ? ক্রাশ তো খেতেই পারে ! হ্যাঁ আমি জানি ক্রাশ খাওয়া মানুষের জন্মগত থুক্কু টিনেজগত অধিকার কিন্তু নিতি সেই যে ক্লাস ফাইভে স্টার্ট দিয়েছিল এরপর আর থামাথামি নাই । বিরতিহীন বাসের মত ননস্টপ চলছেই !

 

ক্রাশের সূত্রপাত অনেক আগে নিতি তখন ক্লাস ফাইভে পড়ে । তিন গোয়েন্দার বিশাল বড় ফ্যান । বইয়ের ভেতর মোবাইল রেখে এখন যেমন আমরা খুব নেটে ঘোরাঘুরি করি ঐ সময়টা ছিল তিন গোয়েন্দার পেপারব্যাক এর স্বর্ণযুগ । হেন পোলাপাইন নাই যে পড়ার বইয়ের ভিতরে তিন গোয়েন্দা রেখে পড়ে নাই । যাই হোক , নিতি এই তিন গোয়েন্দার হেড কিশোর পাশার প্রেমে পড়ে গেলো হুট করেই ।

কিশোর পাশার বুদ্ধিদীপ্ত চোখ , কোঁকড়ানো চুল ইত্যাদির প্রেমে তো পড়লোই সেই সাথে তর্জনি আর কনিষ্ঠা দিয়ে ঠোঁটে চিমটি কাটার অভ্যেস ও করল । যাই হোক যেদিন নিতি বুঝল যে কিশোর পাশা বলতে কেউ নাই সেদিন বেচারির মন ভেঙ্গে খানখান হয়ে গেলো । ভাঙ্গা মন জোড়া লাগালো আরেকজন । নিতি তখন ক্লাস এইটে উঠি উঠি করছে ।

 

হুজুগে বাঙ্গালি ইন্ডিয়ান আইডলে মাতোয়ারা । নিতির ভাঙ্গা মনের মিস্ত্রী হল গায়ক রাহুল বৈদ্য । নিতির সেই প্রেম টানা চার বছর টিকে ছিল ! রাহুলকে লেখা তার ইনানো বিনানো চিঠি পড়লে আমি শিওর ঐ পোলাও রাজি হয়ে যেতো । যখন বাংলাদেশে রাহুল আসলো এবং নিতি সাত হাজার টাকার টিকিট কিনে ওকে দেখতে গেলো আমরা পুলাপান ভেবেছিলাম এই বুঝি প্রেম হয়ে যায় ! ভাবার কারণ ও ছিলো ! কনসার্টে আসা মানুষজনদের যে গিফট দেয়া কনসার্টের ই ঐতিহ্য তা কি আমরা জানি না ঐ নিতি আমাদের বলেছে ! আমাদের সবার মধ্যে কানাকানি পড়ে গিয়েছিল নিতির ভাগ্য নিয়ে !

 

যাই হোক নিতির চার বছরের পিরিত রাহুল বাদ (!) পড়লো পেপারে এনগেজমেন্টের খবরে ! এরপর এন্ড্রু ফ্লিনটফ , ব্রেট লি , টমক্রুজ , ড্যানিয়েল রেডক্লিফ , ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্দো ... নিতির ক্রাশ খাওয়ার লিস্ট চলছেই !

 

ব্যাপারটা এমন হয়ে দাঁড়ালো যে সেলিব্রেটি সুদর্শন যে কারো উপরেই নিতি পোল্টি খেতে লাগলো ! আমাদের সেই নিতি আবারো ক্রাশ খেলো ! তবে এইবার এই মেয়েরে মাইর দিতে হবে ! এইবার বেয়াদ্দবটা যে আমার ক্রাশের দিকে চোখ দিলো ! :@

গত তিনবছর ধরে আমি ওকে দেখি আর বড় বড় , দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর শ্বাস ফেলি নিতি বেয়াদব , ফাজিলের ফাজিল , বদ মেয়ে লোক এবার তার উপর চোখ দিলো !

 

এইটা আমি কোনমতেই মেনে নিতে পারি না ! মানি না , মানবো না ! ওহ্ নিতি এইবার কার উপর ক্রাশ খেয়েছে জানতে চান ? ওর নজর থেকে কেউ বাঁচে বুঝি ? দুনিয়ার সবাইকেই ওর ভালো লাগে ! এইবার ও চোখ দিয়েছে আমার ও এর উপরে !

কি বললেন ? ও টা কে ?

 

ওর নাম ... ইয়ে বলতে লজ্জা লাগছে ! 

 

ও কে চেনেন আপনারা !

 

হ্যাঁ সবাই চেনেন !

 

নিতি বদ টা ওকে জান বলে ! কত্ত বড় সাহস !

 

ওর নামটা হচ্ছে , ইয়ে মানে সাকিব আল হাসান ! 

 

কি ব্যাপার এইভাবে তাকাচ্ছেন কেন ? হতে পারে ও প্লেয়ার ! তাই বলে কি ও মানুষ না !

 

নিতি কে কি করে ওর কাছ থেকে সরাই বলেন তো !

 

 

Share